জাভেদ আখতারের দায়ের করা মানহানির মামলায় অস্বস্তিতে কঙ্গনা রানাউত



বি.বি নিউজ বিনোদন ডেস্কঃআবারও অস্বস্তিতে বিতর্কিত বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত(Kangana Ranaut)। তাঁর বিরুদ্ধে বলিউডের নামী গীতিকার ও চিত্রনাট্যকার জাভেদ আখতারের (Javed Akhtar) দায়ের করা মানহানির মামলা খারিজ করে দেওয়ার জন্য বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। তাঁর সেই আরজি খারিজ করে দিল আদালত। যা কঙ্গনার জন্য বড় ধাক্কা বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

আন্ধেরির ম্যাজিস্ট্রেট এবছরের গোড়ায় কঙ্গনার বিরুদ্ধে তদন্তের যে নির্দেশ দিয়েছিলেন তাকে চ্যালেঞ্জ করে কঙ্গনার আইনজীবী রিজওয়ান সিদ্দিকি আদালতে আরজি জানিয়েছিলেন, অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ খারিজ করে দেওয়া হোক। এমনকী তাঁর দাবি ছিল, আদালত মামলাটিতে সেভাবে মনোযোগ দেয়নি।

যদিও জাভেদ আখতারের আইনজীবী জয় ভরদ্বাজ হাই কোর্টকে বলেন, জাভেদ আখতারের অভিযোগ খতিয়ে দেখে এবং কঙ্গনার সাক্ষাৎকারের বিষয়টি নজরে রেখেই নির্দেশ দিয়েছিল আদালত।

বিশেষ করে সাক্ষাৎকারের যে অংশটিতে কঙ্গনা অবমাননামূলক মন্তব্যটি করেছিলেন তা খেয়ালে রেখেই আদালত ওই নির্দেশ দিয়েছিল বলে দাবি করেন তিনি। গত ১ সেপ্টেম্বরের শুনানির পরে হাই কোর্টের বিচারপতি রেবতী মোহিতে দেরে এদিন তাঁর রায়ে জানিয়ে দেন, কঙ্গনার পিটিশন খারিজ করে দেওয়া হল।

জাভেদ আখতারের বিরুদ্ধে ঠিক কী মন্তব্য করেছিলেন বলিউডের ‘কন্ট্রোভার্সি ক্যুইন’? হৃত্বিক রোশনের সঙ্গে বিতর্ক প্রসঙ্গে জাভেদের বিরুদ্ধে বাড়িতে ডেকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ করেন কঙ্গনা।

তাছাড়া সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর নেপোটিজম বিতর্কেও তিনি আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ জাভেদ আখতারের। তাঁর মতে, কঙ্গনার এই ধরনের দাবির ফলে তিনি নানা হুমকি বার্তা ও টেলিফোন পেয়েছেন।এমনকী, সোশ্যাল মিডিয়াতেও ট্রোলের শিকার হতে হয়েছে। এর ফলে সামগ্রিক ভাবে তাঁর ভাবমূর্তির ক্ষতি হয়েছে।

উল্লেখ্য, বিতর্ক অবশ্য নতুন নয় কঙ্গনার কাছে। এর আগে তিনি ও তাঁর দিদির বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়া ও টেলিভিশন চ্যানেলের মাধ্যমে ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ আনেন সাহিল আশরাফালি সায়েদ নামের এক কাস্টিং ডিরেক্টর। তাঁর অভিযোগ, কঙ্গনা এবং রঙ্গোলি উসকানিমূলক বার্তা ছড়িয়ে দুই ভিন্ন ধর্মের মানুষের মধ্যে বিভেদ তৈরি করার চেষ্টা করছেন। সেই মামলায় মুম্বই পুলিশের সামনে হাজিরা দেওয়ার কথা ‘ক্যুইন’ অভিনেত্রীর।

error: