‘‘প্রধানমন্ত্রী যে কেউ হতে পারেন, তবে প্রধানমন্ত্রী কে হবেন সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়”- মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়



বি.বি নিউজ ডিজিটাল ডেস্ক : মুম্বাই সফরের দ্বিতীয় দিনে বিজেপি কে নিশানা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 2024 এর লোকসভা নির্বাচনের প্রধান বিকল্প হিসাবে তৃণমূল কংগ্রেসকে তুলে ধরতে চাইছেন মমতা। তারই অঙ্গ হিসেবে আজ বুধবার মুম্বইয়ে বিদ্বজ্জনদের সঙ্গে বৈঠকে বুধবার তিনি বললেন, ‘‘কে প্রধানমন্ত্রী হবেন, তা গুরুত্বপূর্ণ নয়। বিজেপি-কে সরিয়ে গণতন্ত্রকে রক্ষা করাই লক্ষ্য হওয়া উচিত।’’

মুম্বই সফরের দ্বিতীয় দিনে মমতা বুধবার কবি-গীতিকার জাভেদ আখতারকে সঙ্গে নিয়ে মহারাষ্ট্রের বিশিষ্টজনদের বৈঠকে হাজির হন। ওই বৈঠকে ছিলেন মহেশ, স্বরা ভাস্কর, রিচা চাড্ডা, মেধা পাটকরের মতো ব্যক্তিত্ব। হাজির ছিলেন সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিশিষ্টজনেরাও।

মমতাকে মুম্বইয়ের বিদ্বজ্জনেরা একযোগে জানান, বিজেপি-র শাসনে দেশে যখন দুরাশার অন্ধকার নেমেছিল, তখন পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের জয়ই তাঁদের আশার আলো জুগিয়েছে। তাই মমতাই তাঁদের কাছে আশার আলোর প্রতীক। একইসঙ্গে তাঁদের এ প্রশ্নও ছিল, এই পরিস্থিতিতে কি মমতা নিজেকে দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ভাবছেন?

জবাবে মমতা বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী যে কেউ হতে পারেন। তবে প্রধানমন্ত্রী কে হবেন সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। লোকসভা নির্বাচনে দেশের গণতন্ত্রকে রক্ষা করাই লক্ষ্য হওয়া উচিত।’’

মমতার সঙ্গে মুম্বইয়ের বিশিষ্টজনেদের আলাপ করিয়ে দেন জাভেদ। মমতাকে অভিনেত্রী স্বরা বলেন, ‘‘পশ্চিমবঙ্গ খেলা দেখিয়ে দিয়েছে। আমরা তাতে খুশি। কিন্তু আরও বড় লড়াই করতে হবে। কিন্তু নাগরিকদেরও কথা বলার অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া হচ্ছে। এর প্রতিকার কী?’’

বুধবারের বৈঠকে এই প্রশ্ন বার বারই আসে মমতার কাছে। জবাবে মমতা বলেন, ‘‘নাগরিক সমাজ একটি কমিটি বানাক। আপনারা আমাদের দিশা দেখান। শুরুটা মুম্বই থেকেই হোক। যা সাহায্য লাগে, করব। মুম্বই আর কলকতা যদি একসঙ্গে কাজ করে, তবে দিল্লি ভয় পাবে।’’

কমিটি গঠনের ব্যাপারে চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, দিল্লির বিশিষ্টজনদেরও সঙ্গে নেওয়ার কথাও বলেন মমতা। তিনি বলেন, ‘‘স্বরার মতো তরুণদের সঙ্গে নিন।’’ স্বরার কথার সূত্র ধরেই মমতা বলেন, ‘‘খেলা হয়ে গিয়েছে নয়, আবার খেলা হবে।’’

error: