মুর্শিদাবাদের পর্যটন কেন্দ্রের আকর্ষণ মতিঝিলকে তুলে দেওয়া হল রাজ্য ট্যুরিজমের হাতে



জৈদুল সেখ, বহরমপুরঃঃ রাজ্যের পর্যটন মানচিত্রের ফোকাসে মুর্শিদাবাদ । ঐতিহাসিক জেলা কেবলমাত্র ইতিহাসেই নয় প্রাকৃতিক সৌন্দর্যেও সমৃদ্ধ। এবার মুর্শিদাবাদের পর্যটনের বিকাশে নতুন করে উদ্যোগী হল রাজ্য সরকারের পর্যটন দপ্তর DEPARTMENT OF TOURISM GOVERNMENT OF WEST BENGAL ।
জেলার পর্যটন শিল্পের বিকাশের লক্ষ্যে প্রাথমিকভাবে জেলার অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র মোতিঝিলকে বেছে নেওয়া হয়েছে। মোতিঝিলকে নতুন ভাবে সাজাতে উদ্যোগী পর্যটন দপ্তর। সেইমতো বুধবার বহরমপুরে সার্কিট হাউসে সাংবাদিক বৈঠকে মোতিঝিল হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার কথা জানানো হয়। পর্যটন দপ্তরের প্রধান সচিব নন্দিনী চক্রবর্তীর হাতে মুর্শিদাবাদ জেলা শাসক শরদ কুমার দ্বিবেদী আনুষ্ঠানিক ভাবে চুক্তি পত্র তুলে দেন। উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন উন্নয়ন নিগমের ম্যানেজিং ডিরেক্টর।
এতদিন মোতিঝিলের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব ছিল মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসন। এবার সেই দায়িত্ব নিল রাজ্য পর্যটন দপ্তর।
বুধবার বহরমপুর সার্কিট হাউসে ট্যুরিজম সেক্রেটারি নন্দিনী চক্রবর্তী সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছেন, পর্যটনের ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি জেলা। এই জেলার পর্যটন কেন্দ্র গুলিকে একত্রিত করতে সার্কিট ট্যুরিজম তৈরি করা হবে। এছাড়াও সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মুর্শিদাবাদ জেলা শাসক শরৎ কুমার দ্বিবেদী সহ অন্যান্য আধিকারিকগন আজ জেলার বিভিন্ন ট্যুরিজম কেন্দ্রগুলি ঘুরে দেখবেন বলে জানিয়েছেন।
প্রসঙ্গত এদিন সরকারি অনুষ্ঠানে মুর্শিদাবাদ জেলার পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন নিয়ে নানান বিষয় তুলে ধরা হয়। ডিজিট্যাল মাধ্যমে পর্যটকদের টানা, সার্কিট ট্যুরিজমে জোর দেওয়া, পথসাথীকে উন্নত মানের করে গড়ে তোলা, ভাগীরথী নদীর তীরে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা, যোগাযোগের সমস্যার সমাধান করা, একাধিক বিষয় নিয়ে কালচারাল হেরিটেজ হিসেবে তুলে ধরা হয় মুর্শিদাবাদকে।

error: