এরদোগানের বর্জনের পর নতুন নিয়ম কার্যকর থেকে পিছিয়ে আসতে বাধ্য হলো হোয়াটসঅ্যাপ কতৃপক্ষ



বি.বি নিউজ আন্তর্জাতিক ডেস্কঃডেটা শেয়ারিং এর নীতিমালা পরিবর্তন করে গ্রাহকদের গোপনীয়তা রক্ষা না করা এবং নতুন প্রাইভেসি পলিসি বাস্তবায়ন করা থেকে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। বিশ্বব্যাপী প্রচুর পরিমাণে গ্রাহক হারানোর ফলে তারা তাদের গ্রাহকদের ডেটা শেয়ারিং এর নীতিমালা এবং নতুন প্রবর্তিত প্রাইভেসি পলিসির বাস্তবায়ন স্থগিত করতে বাধ্য হয়।

শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) সোশ্যাল জায়ান্ট ফেসবুকের মালিকানাধীন ওই অ্যাপটির কর্তৃপক্ষ তাদের নতুন নীতিমালা স্থগিত করার ঘোষণা দেয়।

ঘোষণায় তারা বলে, আমাদের নতুন ডেটা শেয়ারিং নীতিমালা ও প্রাইভেসি পলিসি নিয়ে বিশ্বজুড়ে জনমনে নিরাপত্তাজনিত উদ্বেগ দেখা দেওয়ায় আমরা তা স্থগিত করতে বাধ্য হচ্ছি।

তাদের বক্তব্য মতে, নিরাপত্তাজনিত উদ্বেগ দেখা দেওয়ার ফলে বিশ্বজুড়ে হোয়াটসঅ্যাপের বিশাল সংখ্যক গ্রাহক তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী টেলিগ্রাম, সিগন্যাল ও তুর্কী বিপের মতো বিকল্প অ্যাপগুলোর প্রতি ঝুঁকছে।

তাছাড়া, বিশ্বজুড়ে গ্রাহক সংখ্যা কমে যাওয়ায় বিশাল ধ্বসের কবলে পরা এই অ্যাপটি ফেসবুক সহ অন্যান্য কোম্পানির সাথে নিজেদের গ্রাহকদের ডেটা শেয়ারিং এর নতুন নীতিমালা কার্যকর করার ব্যাপারে ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত যে শেষ সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলো সেই শেষ সময়সীমাও জরুরী ভিত্তিতে বাতিল করে দিতে বাধ্য হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপের সবচেয়ে বড় বাজার হলো ভারতীয় উপমহাদেশের দেশগুলো। শুধুমাত্র ভারতেই তাদের গ্রাহক সংখ্যা ৪০০ মিলিয়ন!

ডেইলি মিন্ট নামক একটি অর্থনীতি বিষয়ক দৈনিক পত্রিকা সেন্সর টাওয়ার নামক গবেষণা সংস্থার উদ্ধৃতি দিয়ে জানায় যে, তথ্য-উপাত্ত যাচাইয়ের পর দেখা গেছে, হোয়াটসঅ্যাপ তাদের নীতিমালা পরিবর্তনের ঘোষণা দেওয়ায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে গ্রাহক হারানোর পাশাপাশি তাদের সবচেয়ে বড় বাজার ভারত থেকেই ৪ মিলিয়নের বিশাল সংখ্যক গ্রাহক হারিয়েছে।

বিশ্বে হোয়াটসঅ্যাপের সবচেয়ে বড় বাজারের গ্রাহক ধ্বস ঠেকাতে গত বুধবার থেকেই ভারতীয় পত্রপত্রিকার পুরো পৃষ্ঠাজুড়ে বিজ্ঞাপন দিয়ে আসছিলো হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ। পৃষ্ঠাজুড়ে বিজ্ঞাপনে ‘আপনাদের গোপনীয়তার প্রতি শ্রদ্ধা আমাদের ডিএনএতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে’ লেখা থাকতে দেখা যায়।

অপরদিকে পূর্বের হোয়াটসঅ্যাপের মতো এনক্রিপ্টেড পদ্ধতিতে গ্রাহক সেবা দেওয়া টেলিগ্রাম জানিয়েছে যে, তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী হোয়াটসঅ্যাপ নিজেদের এনক্রিপটেড পরিষেবা পরিবর্তন পূর্বক ডেটা শেয়ারিং ও প্রাইভেসি পলিসি পরিবর্তনের ঘোষণা দেওয়ায় তাদের গ্রাহক সংখ্যা আগের তুলনায় অনেক বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।

টেলিগ্রাম অ্যাপের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা পাভেল দুরভ হোয়াটসঅ্যাপকে খোঁচা মেরে বলেন, মানুষ এখন আগের মতো নিজেদের ব্যক্তিগত ও গোপনীয় তথ্যের বিনিময়ে বিনা পয়সায় দেওয়া সেবা নিতে চায় না!

তাছাড়া তুর্কী টেলিকমিউনিকেশন প্রতিষ্ঠান তুর্ক সেল জানায়, তুর্কী প্রেসিডেন্ট এরদোগান তুর্কী বিপ অ্যাপে ব্যবহার শুরু করার পর থেকে গ্রাহক সামলাতে তারা হিমশিম খাচ্ছেন। প্রতিদিন কমপক্ষে ২০ লক্ষ করে তাদের গ্রাহক সংখ্যা বাড়ছে বলে জানায় বিপ কর্তৃপক্ষ।

তুর্কী বিপ অ্যাপের গ্রাহকদের উন্নত গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করতে তাদের কর্মীরা দিনরাত কাজ করে চলেছে বলেও জানায় এই তুর্কী টেলিকমিউনিকেশন প্রতিষ্ঠানটি।

উল্লেখ্য, গত সোমবার (১১ জানুয়ারি) হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের নতুন প্রাইভেসি পলিসির প্রবর্তন ও এর কারণ ব্যাখ্যার পর তার ব্যবহার বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলো প্রেসিডেন্ট এরদোগানের অফিসিয়াল মিডিয়া সেল।

কারণ হিসেবে তারা, ইউরোপীয় এবং অ-ইউরোপীয় বা অনুন্নত রাষ্ট্রগুলোতে হোয়াটসঅ্যাপের বৈষম্যমূলক প্রাইভেসি নীতিমালাকে দায়ী করে। তাছাড়া, গত বুধবার তুর্কী প্রেসিডেন্ট আনুষ্ঠানিকভাবে হোয়াটসঅ্যাপ বর্জন করে তুর্কী বিপ অ্যাপ চালানো শুরু করলে বিশ্বজুড়ে হোয়াটসঅ্যাপের গ্রাহক সংখ্যায় আগে থেকে চলতে থাকা ধ্বস আরো বহুগুণে বৃদ্ধি পায়।

এন্ড টু এন্ড এনক্রিপটেড পদ্ধতির কারণে বিশ্বজুড়ে সমাদৃত হোয়াটসঅ্যাপের গ্রাহক সংখ্যা একদিকে তুমুল গতিতে কমতে থাকলেও অপরদিকে তুর্কী বিপ অ্যাপ ডাউনলোড করার মাত্রা তুমুল গতিতে বাড়তে থাকে।

সূত্র: আরব নিউজ

error: