হায়দ্রাবাদ পুরসভার নির্বাচনে বিজেপির চড়া সাম্প্রদায়িক প্রচারের প্রতিবাদে সরব মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর



বি.বি নিউজ ওয়েব ডেস্ক, 30 নভেম্বর 2020: গ্রেটার হায়দরাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের আসন্ন নির্বাচনে চড়া সুরের সাম্প্রদায়িক প্রচারের বিরোধিতা করে মুখ খুললেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর। লাল বাহাদুর শাস্ত্রী স্টেডিয়ামে টিআরএস-এর এক জনসভায় তিনি বলেন – বিভাজক শক্তির হাত থেকে আমাদের হায়দরাবাদকে রক্ষা করুন।

ওই জনসভায় কে চন্দ্রশেখর আরও বলেন – কিছু বিভাজক শক্তি হায়দরাবাদে প্রবেশ করতে চাইছে। আপনারা কী একে সমর্থন করবেন? আমরা কি আমাদের শান্তি বিঘ্নিত করবো? এর পাশাপাশি শহরের বুদ্ধিজীবী এবং শিক্ষাবিদদের উদ্দেশ্যে তিনি এই বিভাজক শক্তির বিরুদ্ধে সামনে এগিয়ে এসে মানুষকে শিক্ষিত করার আবেদন জানান।

উল্লেখ্য, নির্বাচনী প্রচারে এসে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ হায়দরাবাদের নাম বদল বিতর্ক উসকে দিয়েছেন। এক রোড শো চলাকালীন যোগী বলেন – অনেকেই আমাকে জিজ্ঞেস করেন হায়দারাবাদের নাম বদলে ভাগ্যনগর করা যায় কিনা। আমি বলছি – কেন করা যাবেনা? বিজেপি উত্তরপ্রদেশে ক্ষমতায় আসার পর আমরা ফৈজাবাদের নাম বদলে অয্যোধ্যা করেছি, এলাহাবাদের নাম বদলে প্রয়াগরাজ করেছি। তাহলে কেন হায়দারাবাদের নাম বদলে ভাগ্যনগর করা যাবেনা?

তারও আগে বিজেপি তেলেঙ্গানা রাজ্য সভাপতি বান্দি সঞ্জয় এক জনসভায় বলেন – হায়দারাবাদে সারজিক্যাল স্ট্রাইক করে রোহিঙ্গা ও পাকিস্তানিদের ফেরত পাঠানো হবে।

একইভাবে বিজেপি সাংসদ তেজস্বী সূর্য মিম প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়েসিকে বর্তমান মহম্মদ আলি জিন্নাহ বলে উত্তেজনা ছড়ান।

ইতিমধ্যেই হায়দারাবাদ পুর নির্বাচনে বিজেপির এই চড়া সুরের সাম্প্রদায়িক প্রচারের বিরোধিতা করে প্রতিবাদ জানিয়েছে টিআরএস, কংগ্রেস, মিম সহ একাধিক রাজনৈতিক দল।

error: